কিভাবে সম্পর্কের উন্নয়নসাধন করা যায় তা সকলেই জানতে চান, এমনকি সম্পর্কের বিকাশ-উপযোগী অনেক বইও বাজারে কিনতে পাওয়া যায়।
সম্পর্কের উন্নয়ন সাধনকারী 5A ম্যাথড:
১. (Avoiding ‘I’ consciousness)আত্মচেতনা পরিহার করা: মানুষ স্বভাবতই এরকম বলতে পছন্দ করে ‘আমি-আমি-আমি’ ‘I-I-I’; প্রকৃতপক্ষে আপনি হয়ত জানেন, মিডিয়াও এই সত্যটি জানে এবং সেই কারণেই বেশিরভাগ দ্রব্যের নাম এরকম ‘আইপ্যাড, আইপড, আইফোন’‘iPad,iPod,iPhone’। তাই, এই আত্মচেতনাই সম্পর্কের ক্ষতিসাধনের এক নম্বর বিষয়। ‘আমি’ অহংকারকে প্রতিনিধিত্ব করে, যেটি সম্পর্কের মাঝে বেশি এসে সম্পর্কে ছিন্ন করতে সদা তৎপর থাকে। ‘আমি’ চাহিদাকেও প্রতিনিধিত্ব করে। মানুষের অধিক পরিমাণে চাহিদা রয়েছে যেমন- আমাকে সবাই ভালবাসবে, আমাকে সবাই সম্মান করবে, সবাই আমার সেবা করবে এবং এই সমস্যাটিই সম্পর্ক ছিন্ন করে। তাই, আমাদের এ ধরণের ‘আত্ন-চেতনা’ বা হিংসাত্মক চেতনা পরিহার করা উচিত।
২. (Acknowledging other’s contribution)অন্য সকলের অবদান স্বীকার করা: প্রত্যেকের উচিত অন্য সকলের অবদান স্বীকার করা। আমাদের জীবনে আমাদের মায়ের, বাবার, বোনের, বন্ধুদের অসংখ্য অবদান সম্পর্কে আমরা সকলেই জানি। তাই, আমাদের প্রত্যেকের উচিত এই অবদানটুকু স্বীকার করা। এটি সম্পর্কের অগ্রগতি সাধনে সাহায্য করবে।
  • Left
  • Center
  • Right
Remove

click to add a caption

৩. (Appreciation)মূল্যায়ন বা কদর করা: এটি সুসম্পর্ক বজায় রাখার খুব খুব খুবই গুরুত্বপূর্ণ সমাধান। মূল্যায়ন খুবই গুরুত্বপূর্ণ, প্রকৃতপক্ষে, সকলেরই এটি প্রয়োজন, সকলেরই অনুপ্রেরণা বা উৎসাহ প্রয়োজন। অন্য কারও দোষ না ধরে শুধু এটি বোঝার চেষ্টা করুন যে একজন ব্যক্তি আপনার জন্যে কি কি করেছেন। চলুন, আমরা সকলে তা বোঝার চেষ্টা করি, তাঁদেরকে মহিমান্বিত করার চেষ্টা করি, তাঁদের মূল্যায়ন করার চেষ্টা করি, এটি সম্পর্কের অগ্রগতি সাধনে দ্ব্যর্থহীনভাবে সাহায্য করবে। আজকের বিশ্বে প্রত্যেকেই সম্মান পেতে, কদর লাভ করতে চায়, তাই যখন কেউ আপনার কর্তৃক মূল্যায়িত হবে, তখন তিনি আনন্দিত হবে, সম্মান অনুভব করবেন।
৪. (Avoid judging)বিচার করা এড়িয়ে চলুন: আজকের দিনে, ‘বিচার করার মানসিকতা’ হল সম্পর্ক ধ্বংস করার এক নম্বর রোগ। আমাদের অন্যদের বিচার করা উচিত নয়, বিশেষত প্রিয় বা প্রিয়তম ব্যক্তিদের। বিচার করার এই মানসিকতা খুবই খারাপ।
একবার, এক মহিলা একটি সাঁকো পার হচ্ছিলেন, যেটি নড়বরে অবস্থায় ছিল। তিনি অত্যন্ত উদ্বিগ্ন বা ভীত ছিলেন যেহেতু সাঁকোটি কাঁপছিল, ঠিক তখনি তিনি সাঁকোটির অপর পার্শ্বে তাঁর স্বামীকে দেখতে পেলেন। তিনি তার স্বামীকে ডাক দিয়ে বললেন, ‘দয়া করে এসে আমার হাত ধরে আমাকে পার কর।’ তার স্বামীর প্রত্যুত্তর ছিল এরকম, ‘আমি এখন আসতে পারব না।’ স্বামীর উত্তর শুনে তিনি অসন্তুষ্ট মনে ভাবতে লাগলেন, ‘কেন আমার স্বামী আমার সাথে এরকম আচরণ করা শুরু করেছে? কেন সে আসতে পারবে না? আমার হাত ধরতে পারবে না? আমার সহযোগিতা প্রয়োজন।’ ধীরে ধীরে তিনি হাঁটা শুরু করলেন এবং একসময় তিনি সাঁকোর প্রায় শেষ অবস্থানে চলে আসলেন। শেষ অবস্থানে এসে তিনি আশ্চর্যে তাড়িত হয়ে তার স্বামীকে দেখলেন, যিনি প্রকৃতপক্ষে সাঁকোটি শক্ত করে ধরে রেখেছেন যাতে তিনি সহজে পার হতে পারেন। তিনি তার স্বামীকে হৃদয়গ্রাহী ধন্যবাদ জানালেন।
  • Left
  • Center
  • Right
Remove

Only Krsna is our eternal LOVE!

তেমনি, আমরা আমাদের জীবনে অসংখ্যবার বিভিন্ন পরিস্থিতিতে অন্যদের বিচার করা শুরু করি পরিবেশ-পরিস্থিতি সঠিকভাবে বিচারজ্ঞান না করেই। আমাদের বিচার করার এই মানসিকতা বর্জন করা উচিত।
৫. (Adopting loving exchanges)প্রেম বিনিময় করা: সম্পর্ক রক্ষায় প্রেম বিনিময় করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সম্পর্কের অগ্রগতি এবং দীর্ঘস্থায়ী করার জন্যে সবচেয়ে বড় কাজটি হল পারস্পরিক সময় ব্যয় করা। আমাদের একজন মহান আচার্য্য শ্রীল রূপ গোস্বামী খুব সুন্দরভাবে তাঁর উপদেশামৃতে প্রেম বিনিময়ের ৬টি টীকা উল্লেখ করেছেন। সেগুলি হল:
 
  • Left
  • Center
  • Right
Remove

Eternal Loving exchange with Lord Krsna

 
I. নিজের হৃদয় অন্যের সাথে দৃঢ়তার সাথে বিনিময় করা বা প্রদান করা।
II. দৃঢ়তার সাথে অন্যের হৃদয় গ্রহণ করা।
III. উপহার গ্রহণ করা।
IV. উপহার প্রদান করা।
V. খাবার বা প্রসাদ গ্রহণ করা।
VI. প্রসাদ প্রদান বা বিতরণ করা (বিনিময়)
এভাবে, পারস্পরিক সম্পর্কজনিত অসংখ্য সমস্যার সমাধান ঘটেছে এবং সম্পর্ক গভীর থেকে গভীরতম হয়েছে। এই পাঁচটি ম্যাথড আপনার সম্পর্কের অগ্রগতিতে সহায়তা করবে। হরে কৃষ্ণ!
Advertisements